Header Border

গাইবান্ধা সোমবার, ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ ইং | ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল) ২৮°সে
শিরোনাম :
বৈরী আবহাওয়ায় গাইবান্ধায় পানিতে ভাসছে ১২০০০ হেক্টর আমন ধান বৈরী আবহাওয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত, স্থবির ব্যবসা বানিজ্য বন্যায় ভাঙন সড়কে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করলো গ্রামবাসী বৈরী আবহাওয়ায় গাইবান্ধায় আমন ধানসহ ফসলাদির ক্ষতির আশঙ্কা হাতির পিঠে ই-সেবার প্রচারণা সাদুল্লাপুরের সেই কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মতিনকে অবশেষে অব্যাহতি সাদুল্লাপুরে ঘর ও সোলার দেওয়ার নামে অর্থ আদায়ের অভিযোগ সাদুল্লাপুরে অগ্নিকাণ্ডে ১০ পরিবারের ঘরবাড়ি ভস্মিভূত, ১৮ লক্ষাধিক টাকা ক্ষয়ক্ষতি গাইবান্ধায় দইয়ের বাটি তৈরী করে সফলতা পেয়েছে মজিদা ও মহিদুল গাড়ী ধোয়া-মোছার কাজ করা শ্রমিকরাই চালক হয় : সভাপতি কাজী মকবুল হোসেন

গাইবান্ধায় প্রাণিসম্পদ বিভাগের উদ্যোগে ১৮৩০০ গবাদি পশু-পাখিকে ভ্যাকসিন প্রদান

প্রাণিসম্পদ সুরক্ষায় চলতি বছরের বন্যায় সকলধরনের ক্ষয়ক্ষতিরোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করে গাইবান্ধা প্রাণিসম্পদ বিভাগ। তার মধ্যে ছিল মেডিকেল টিম গঠন, সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ, গবাদিপশু ও হাঁস-মুরগিকে ভ্যাকসিন প্রদানসহ গোখাদ্য বিতরণ অন্যতম। এছাড়াও আরও বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহন করা হয় জেলা ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরগুলো থেকে।

গাইবান্ধা জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর জুলাইয়ে কয়েক দফার বন্যায় জেলায় প্রাণিসম্পদ সুরক্ষায় বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়। এর মধ্যে ছিল মেডিকেল টিম গঠন। আর তাই জেলার বন্যাকবলিত এলাকাগুলোয় দিন-রাত ১১টি মেডিকেল টিম কাজ করে। ছিল প্রাণিসম্পদের ক্ষয়ক্ষতিরোধে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণের কার্যক্রমও।

সে হিসেবে বন্যায় লিফলেট বিতরণ করা হয় ৫ হাজার ৫০০টি। শুধু তাই নয়, ৭ হাজার ৪০০ গরু ও ১০ হাজার ৯০০টি পোল্ট্রি হাঁস-মুরগিকে ভ্যাকসিন প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে আরও ১ হাজার ৯৫০টি গরুকে। বন্যায় গবাদিপশুর খাদ্য সংকটে ৩৫০ জন কৃষককে উন্নতামানের গোখাদ্য দেওয়া হয়েছে ও গবাদিপশুর জন্য কৃমিনাশক ট্যাবলেট দেওয়া হয়েছে আরও ৩২৫ জনকে। লাম্পি স্কিন ডিজিজ মোকাবেলায় উঠোন বৈঠকসহ লিফলেট বিতরণ করা হয় সাত উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।

এসব বিষয়ে জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. আব্দুস ছামাদ বলেন, বন্যা শুরুর আগেই সকলধরনের ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় জেলা ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরগুলো থেকে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার উদ্যোগ নেওয়া হয়। আর সে কারণেই বন্যায় বড় ধরনের ক্ষতিক্ষতি মোকাবেলা করাও সম্ভব হয়েছে। আগামীতেও বন্যাসহ সকল ধরনের দুর্যোগে প্রাণিসম্পদ বিভাগ সজাগ থেকে প্রাণিসম্পদের ক্ষয়ক্ষতি মোকাবেলায় সকল কার্যক্রম সম্পন্ন করবে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

বৈরী আবহাওয়ায় গাইবান্ধায় পানিতে ভাসছে ১২০০০ হেক্টর আমন ধান
বৈরী আবহাওয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত, স্থবির ব্যবসা বানিজ্য
বন্যায় ভাঙন সড়কে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করলো গ্রামবাসী
বৈরী আবহাওয়ায় গাইবান্ধায় আমন ধানসহ ফসলাদির ক্ষতির আশঙ্কা
হাতির পিঠে ই-সেবার প্রচারণা
সাদুল্লাপুরের সেই কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মতিনকে অবশেষে অব্যাহতি

আরও খবর