Header Border

গাইবান্ধা সোমবার, ২৩শে নভেম্বর, ২০২০ ইং | ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (হেমন্তকাল) ২২°সে

গরুর দল নিয়ে কোমর পানিতে কৃষক 

বন্যাপরবর্তীতে গাইবান্ধায় দেখা দিয়েছে গবাদীপশুর খাদ্য সংকট। এ সংকট মোকাবিলায়গরুরদলনিয়ে খাল-বিলের কোমর পানিতে নেমে কচুরিপানা খাওয়াচ্ছেন কৃষকরা।

বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর)  গাইবান্ধার জামালপুর ইউনিয়নের চোংগার বিল নামকস্থানে দেখা য়ায় দলবদ্ধ গরুর কচুরিপানা খাওয়ার চিত্র। এসময় সুজা মিয়া নামের এক কৃষকসহ আরো অনেকে গরুকে কুচরিপানা খাওয়াচ্ছিলেন।

জানাযায়, গাইবান্ধা জেলার প্রত্যান্ত গ্রামাঞ্চলের প্রত্যেকটি বাড়িতে দেশিয়পদ্ধতি প্রতিপালন করা হয় গরু-বাছুর। প্রত্যেকটি বাড়িতে ২ থেকে ১০ টি গরুরয়েছে। এসব পশুকে মাঠে বেঁধে খাওয়ানো হয় ঘাস। আর গোয়াল ঘরে খাওয়ানো হয়ধানের খড়-কুড়া। এভাবে গরু-বাছুর প্রতিপালন করে অনেকটাই লাভবান হয়ে থাকেনগৃহস্থালিরা ।

গত দুইমাস আগে গাইবান্ধার প্রত্যেকটি উপজেলা দিয়ে বয়ে গেছে ভয়াবহ বন্যা। এবন্যার পানি বসতবাড়ি থেকে সরে গেলেও, এখনো সরেনি খাল-বিল ও মাঠ থেকে। ফলেগবাদীপশুর দেখা দিয়েছে খাদ্যাভাব। সেই সঙ্গে সম্প্রতি নিম্নচাপের প্রভাবেআমন ফসলেরও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এতে করে গরু-বাছুরের খাদ্য সংকট আরো চরমেপৌঁছাছে। বর্তমান সময়ে কিছু সংখ্যাক কৃষক ধান কাটলেও, যেন ধানের চেয়ে আটিরদামই বেশী। গবাদীপশুর খাদ্য চাহিদা বেশী হওয়ায় প্রত্যকটি ধানের আঁটিকেনাবেচা হচ্ছে ৫ টাকা দরে। তবে এটি গত বছরে দাম ছিলো ১ থেকে ২ টাকাপর্যন্ত।

বিদ্যমান পরিস্থিতে গবাদীপশুর খাদ্য যোগাতে চরম হিমসিম খেতে হচ্ছে মালিকদের।গৃহপালিত গরু-বাছুর বাঁচাতে দুশ্চিন্তায় পড়েছে তারা। এমন পরিস্থিতির শিকার অনেকে কম দামে গরু-বাছুর বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে।

গরুরমালিক সুজা মিয়া বলেন, দেশিয় জাতের ১৫ টি গরু রয়েছে।দীর্ঘদিন ধরে এসব পশু প্রতিপালন করে সংসার চালাই। এবছরে বন্যার প্রভাবেগরুর খাদ্যাভাব দেখা দিয়েছে। এটি মোকাবিলায় চোংগার বিলের কোমর পানিতে নেমেগরুগুলোকে কচুরিপানা খাওয়ানো হচ্ছে।

আরেক কৃষক কলিম উদ্দিন জানান, পানিতে ভাসমান ঘাস গরুকে খাওয়ানোর পর নানা রোগের লক্ষণদেখাদিয়েছে। এ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছি।

তিনি আরো বলেন, একদিকে করোনা অন্যদিকে ব্যনাসহ নানা দুর্যোগের ধকল সামাল দিতে ব্যর্থ হচ্ছি। যেন মড়ার উপর খাড়ার ঘা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

গাইবান্ধা জেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডা. মো. আব্দুস ছামাদ বলেন, প্রাকৃতিক দুর্যেগের কারণে দেশিয় জাতের গরু-বাছুরের সাময়িক খাদ্যের অভাব দেখা দিয়েছে। এটি থেকে রেহাই পেতে কৃষকদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করা হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

সুন্দরগঞ্জে বাঁধের ধারে সবজি চাষে ঝঁকছে কৃষক
ফলোআপ: সাদুল্লাপুর শহরের সড়ক দখলমুক্ত করতে ইউএনও’র নির্দেশ
সাদুল্লাপুরে তথ্য অফিসের উঠান বৈঠক ও সঙ্গীতানুষ্ঠান
সাদুল্লাপুরে ব্যবসায়ী-পরিবহনের দখলে সড়ক,  যানজটে দুর্ভোগ চরমে
সাদুল্লাপুরে বৈতের নামে ৫০ মণ মাছ নিধন,  ফের মাছ ধরার আহবান
থোকা থোকা ফুলের ফাঁকে উঁকি দিচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন

আরও খবর